এই সিরিজে লেখার জন্যে অপরাহ উইনফ্রের মত মানুষ হয় না; দুঃসময়কে সুসময়ে এবং ব্যর্থতাকে সফলতায় রুপান্তরের তাঁর ক্ষমতা সত্যিই বিস্ময়কর।

৫০’র দশকে (১৯৫৪) আমেরিকার সবচেয়ে দরিদ্রতম ঘরে কিশোরি মায়ের গর্ভে তার জন্ম, ৯ বছর বয়স থেকে যৌন নির্যাতনের শিকার, ১৩ তে ঘর পালানো, ১৪ তে গর্ভে সন্তান ধারন এবং জন্মের পর পরই সন্তান হারানো... বিভীষিকাময় জীবন আর কাকে বলে! কিন্তু এর পরের কাহিনী সম্পূর্ন আলাদা, শুনলে আপনি অবাক হবেন।


অপরাহ টেনেসি’তে তার বাবার সাথে থাকা শুরু করেন এবং তার জীবনের এক আশ্চর্য রুপান্তর ঘটতে থাকে। একাডেমিক শিক্ষায় অনেক ভাল করতে থাকেন, সেই সাথে বক্তৃতা এবং বিতর্ক দুই ক্ষেত্রেই অসামান্য দক্ষতা অর্জন করতে থাকেন। লোকাল রেডিওতে খবর পাঠের পার্ট টাইম জবের পাশাপাশি টেনেসি ষ্টেট ইউনিভার্সিটিতে ফুল-টাইম স্কলারশিপও জিতে নেন অপরাহ।

মিডিয়াতে অপরাহ’র প্রাকৃতিক ইন্সটিঙ্কট কাজ করে, আর তিনি কমিউনিকেশনকেই মেজর করেন ইউনিভার্সিটিতে। লেখাপড়া শেষ করতে করতে খুব ভাল জব পেয়ে যান তখনকার বিখ্যাত টিভি শো’তে। তাকে জব দেয়া হয় একটা ইভনিং নিউজ শোতে কো-হোষ্ট হিসেবে।

 

অপরাহ উইনফ্রেঅপরাহ উইনফ্রে


ওই নিউজ প্রোগ্রামের এংকর তখন ছিলেন বিখ্যাত সাংবাদিক জেরি টার্নার। একদিকে সাদা-বয়স্ক-বিখ্যাত জেরি টার্নার, তার সাথে যোগ করা হলো কালো-তরুন-উঠতি অপরাহ উইনফ্রে। ভাল মার্কেটিং এলিমেন্ট; বাস-বিলবোর্ড-প্রমো কাপানো অবস্থা। বিশাল হাইপ তৈরি হলো, কে এই অপরাহ?

কিন্তু সমস্যা হলো, অপরাহ এত হাইপের জন্যে তৈরি ছিলেন না, আর জেরি টার্নার প্রথম থেকেই কো-হোষ্টের বিপক্ষে ছিলেন। রেজাল্ট হলো হাতেনাতেঃ অশ্বডিম্ব। লোকজন দেখে বললো, ‘ওহ, এই অপরাহ!’ স্বর্গ থেকে পতন। এংকরের জব থেকে সরিয়ে দেয়া হলো কপি রাইটিং এবং ষ্ট্রিট রিপোর্টিং এর কাজে। এখানেও অপরাহ ভাল করতে পারলেন না। কপি রাইটিং এ তিনি ছিলেন অনেক স্লো, আর রিপোর্টিং এ নিজেকে পার্সোনালি ইনভল্ভ করে ফেলতেন যা ভালভাবে নিচ্ছিলো না কেউ।
গল্পের এই জায়গাগুলো আমার সবসময় খুব প্রিয়। মানুষ প্রতিকূল অবস্থায় লড়ে কিভাবে জয়ী হয়?

বেশিরভাগ মানুষ এই জায়গায় কি করবে, সবাই বলবে, আররে একটু এডজাষ্ট করে নাও! কিন্তু অপরাহ তা করেন নি, তিনি নিজের শক্তি চিহ্নিত করলেন, দেখলেন, টিভি তার ভাল লাগে কিন্তু নিউজ লাগে না। মানুষের গল্প শুনে উনি নিজেকে এটাচ না করে পারেন না।
অপরাহ রিচার্ড শের’র সাথে শুরু করলেন টক শো (নিউজ শো নয়) People are Talking যা ৫ বছরের বেশি সময় ধরে লোকাল টিভিতে বেশ ভালমতই চলেছিল এবং অপরাহ আজকের অপরাহ হতে শুরু করেন।

 

অপরাহ উইনফ্রেঅপরাহ উইনফ্রে


এর পরের গল্প আমরা অনেকেই জানি। অপরাহ শুরু করলেন The Oprah Winfrey Show, টেলিভিশনের ইতিহাস পালটানো শো, ২৫ বছরের ইতিহাসে এই টিভি শো সারা পৃথিবী জুড়ে মানুষের শুধু ভালবাসাই পায় নি, অপরাহকে পরিনত করেছে ইতিহাসের অন্যতম প্রভাবশালী এবং সম্পদশালী মানুষ হিসেবে।

অন্য অনেক গুনাবলীর সাথে অপরাহ’র যে গুন তাকে সবার থেকে আলাদা করেছে সেটা হলো Empathy, অন্য মানুষের অনুভূতি বোঝার এবং ধারন করার ক্ষমতা। আমরা ব্যবসাকে কেম্নে দেখি? বিজনেস স্কুলে যাও, দুপাতা পড়ো, বিজনেস ম্যানেজমেন্ট শিখে গেলে! এরপর কর্পোরেট মই বেয়ে উপরে উঠে যাওয়ার চেষ্টা করতে করতে জীবন শেষ।

 

অপরাহ উইনফ্রে

অপরাহ কী করেছে দেখেন, উনি একটা ৩ বিলিয়ন USD’র মিডিয়া সাম্রাজ্য তৈরি করেছেন তার ‘Power of Empathy’ সেল করেঃ O Magazine, Oxygen Media, HARPO productions, Oprah Winfrey Network and HARPO Films! আর এই Empathy কোথা থেকে এসেছে জানেন?

-নিজের কঠিন সময়ের শিক্ষা থেকে!

 অপরাহ উইনফ্রে