পৃথিবীর সবচেয়ে প্রতাপশালী দেশের দুই-দুইবারের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, নিঃসন্দেহে সমগ্র দুনিয়ার অর্থনৈতিক এবং রাজনৈতিক ক্ষমতার কেন্দবিন্দু এই ব্যক্তি। কিন্তু জানলে অবাক হবেন, প্রেসিডেন্ট হওয়ার মাত্র ৮ বছর আগে ওবামা তার রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় পরাজয়ের সম্মুখীন হয়েছিলেন! ওই পরাজয় ছিল ভয়াবহ রকমের বাজে কিন্তু ওবামা’র আজকের ওবামা হওয়ার রসদ লুকিয়ে ছিল সেখানে।

২০০০ সালের ভয়াবহ রাজনৈতিক বিপর্যয়ের আগে ওবামার ঝুলিতে ছিল ১৯৯৬ এবং ১৯৯৮ সালের Illinois সিনেট নির্বাচনী বৈতরণী সফলভাবে পার হবার অভিজ্ঞতা। এই সফলতাই বিপদ ডেকে আনলো যখন তিনি আরো বড় মঞ্চের লোভে Washington এর কংগ্রেসম্যান ববি রাশ (Bobby Rush) কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বসলেন ডেমোক্রেট প্রার্থী নির্বাচনে। ওবামা দ্রুত প্রার্থিতা ঘোষনা দিলেন এবং একটা পোল চালালেন অবস্থা বোঝার জন্যে। কিন্তু অবস্থা ভয়াবহ, মাত্র ১১% মানুষ তার নাম শুনেছে, প্রার্থিতা তো দূরের ব্যাপার! ওবামা বোকা কখনোই ছিলেন না, তিনি খুব সহজেই বুঝলেন এটা একটা বড় ভুল হয়ে গেছে। কিন্তু উনি জানতেন না সামনে আরো খারাপ পরিস্থিতি অপেক্ষা করে আছে।

 

বারাক ওবামাবারাক ওবামা


ওবামা ক্যম্পেইন শুরু করলেন, তার লক্ষ্য ছিল সমাজ উন্নয়নের পলিসি তৈরি করা, বাস্তব সমস্যা সমাধানের স্পেসিফিক আইডিয়া সেল করা। কিন্তু ক্যাম্পেইন শুরু করার কয়েকদিনের মধ্যে কংগ্রেসম্যান রাশ-র ছেলেকে রাস্তায় গুলি করে মারা হলো। ওবামা সঠিক কাজ করলেন, ক্যাম্পেইন স্থগিত করলেন এক মাসের জন্যে এবং এই ইস্যুকে তার নির্বাচনী ইশতেহারে যুক্ত করলেন, কিন্তু বিপদ আসলো অন্যদিক থেকে।

ক্রিসমাসের ছুটির সময় আগ্নেয়াস্ত্র বিরোধী আইন পাশে একটা ভোটাভুটি আয়োজন করা হলো Illinois General Assembly তে। কিন্তু ওবামা তখন Hawaii তে তার দাদির সাথে দেখা করতে গেছেন সাথে বউ এবং কন্যা। এই সময় দূর্ভাগ্য তাড়া করলো এবং ওবামা সঠিক সময়ে Illinois ফিরতে পারলেন না তার মেয়ে হঠাত করে অসুস্থ্য হয়ে যাওয়ায়। দূর্ভাগ্যের ষোলকলা পূর্ণ করতে ওই আইন পাশ করানো গেল না পক্ষে কয়েকটি ভোট কম পড়াতে।

 

বারাক ওবামাবারাক ওবামা


ওবামার ইমেজ ধুলোয় মিশে গেল। ব্যাপারটা এরকম দাঁড়ালো, যখন ‘হ্যাঁ’ ভোটের অভাবে আগ্নেয়াস্ত্র বিরোধী বিল ফেইল করলো তখন সিনেটর ওবামা বউ-বাচ্চাসহ Hawaii বীচে মাস্তি করছেন! ওবামা হলেন ইস্যু-ওরিয়েন্টেড রাজনীতিবিদ এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন ইস্যুতে তিনি অনুপস্থিত। যারা রাজনীতির সাথে যুক্ত তারা বুঝবেন এই রকম পরিস্থিতিতে যে কোন নেতা চাইবেন মাটির নীচে লুকিয়ে পড়তে। ফলাফল হতে নাতে হলো, ওবামা বিশাল ব্যবধানে পরাজিত হলেন।

এ পর্যন্ত ওবামা ছিলেন সাফল্য-ব্যর্থতায় মোড়া একজন যে কোন রাজনীতিবিদ। এরপর তিনি যা করলেন তা-ই আসলে তাকে আজকের বারাক ওবামা বানিয়েছে। এমন হাতি-ঘোড়া কিছু করেননি, তিনি ভুল থেকে শিক্ষা নিয়েছেন।

একটা ব্যর্থ ক্যাম্পেইনের পর ওবামা তার মেসেজে পরিবর্তন আনলেন; পলিসি নির্ভর কথা বার্তা থেকে সরে এসে ওবামা চেষ্টা করতে থাকলেন সুন্দর ভবিষ্যতের একটা সামগ্রিক ছবি আঁকতে, প্রথমে Illinois রাজ্যের, তারপর সমগ্র দেশের এবং তারপর পুরো পৃথিবীর।

 

বারাক ওবামাবারাক ওবামা


তার মেসেজ আস্তে আস্তে প্রচার হতে থাকলো, ২০০২ এ এসে ওবামা আবার Illinois সিনেটর নির্বাচিত হলেন এবং এরপরেই সেন্ট্রাল রাজনীতিতে যুক্ত হন ২০০৪ এ United States সিনেট নির্বাচনের মাধ্যমে। ২০০৬ সালে ওবামা লিখলেন The Audacity of Hope যেটা আসলে United States এর প্রেসিডেন্ট হিসেবে তার প্রার্থিতা ঘোষনার মূল হিসেবে কাজ করেছিল।

কঠিন সময়ে এক পা পিছিয়ে এসে সামনে শত পা এগিয়ে যাওয়ার রসদ যোগাড় করতে সবাই পারে না। সবাই যা করে ওবামা তাই করতেন, ইস্যু ভিত্তিক রাজনীতি। কিন্তু ব্যর্থতার শিক্ষা ওবামাকে আরো বড় কিছু চিন্তা করার ক্ষমতা এনে দিয়েছিল।

ওবামার White House যাত্রা মোটামুটি সবাই আমরা জানি কিন্তু আমরা এটা জানি না ৮ বছর ধরে ওবামা শুধু তার ‘Message of Hope’ পার্ফেক্ট করে গেছেন সেই মেসেজ উনি পেয়েছেন ২০০০ সালের ব্যর্থতার সময়ে।

 

ব্যর্থতার গল্পসমগ্র - অপরাহ উইনফ্রে

ব্যর্থতার গল্পসমগ্র - মাইকেল জর্ডান

ব্যর্থতার গল্পসমগ্র - ওয়ারেন বাফেট

ব্যর্থতার গল্পসমগ্র - স্টিফেন হকিং

ব্যর্থতার গল্পসমগ্র - ল্যারি পেইজ - Co Founder of Google

ব্যর্থতার গল্পসমগ্র - ষ্টিভেন স্পিলবার্গ

ব্যর্থতার গল্পসমগ্র - হাওয়ার্ড শুল্টজ্ (পর্ব -১)

ব্যর্থতার গল্পসমগ্র - হাওয়ার্ড শুল্টজ্ (পর্ব -২)