সকল বিলিওনিয়ার এবং সফল ব্যবসায়ীদের মধ্যে ওয়ারেন বাফেট আমাদের প্রায় সকলেরই সবচে’ সুপরিচিত এবং পছন্দের একজন ব্যক্তিত্ব। বাফেট শুধুমাত্র বুদ্ধিমান এবং তীক্ষ্ণ-চেতনাধারীই নন, তিনি খুবই অন্তর্দৃর্ষ্টিপূর্ণ একজন ব্যক্তি। তিনি প্রচুর বই পড়েন এবং এর চেয়েও বড় কথা তিনি জানেন চারপাশে ঘটে যাওয়া ছোটখাটো প্রতিটি বিষয়েই কিভাবে আনন্দের উপকরণ খুঁজে নিয়ে জীবনকে উপভোগ করতে হয়।

 

১। সফলতা নির্ভর করে আপনি নিজেকে অন্যের সামনে কিভাবে তুলে ধরেনঃ

অনেকেই বিশ্বাস করেন গত ১০০ বছরের মধ্যে অন্য ব্যক্তিদের মধ্যে বাফেটই সকল শ্রেষ্ঠ ধারণার উদ্ভাবক। তিনি একজন ভাল বক্তা হিসেবেও সুপরিচিত। কিন্ত বাফেটের পথ চলার শুরুটা ঠিক এমন ছিল না। ২০ বছর আগেও বাফেট প্রকাশ্যে তাঁর নামটিও বলতে পারতেন না। কলেজে থাকাকালীন সময়ে তিনি এমন একটা বিষয় বেছে নিয়েছিলেন যেখানে নিজেকে প্রেজেন্টেশন বা এই ধরনের গ্রুপ ওয়ার্কের মাধ্যমে তুলে ধরার কোন সু্যোগ ছিলো না। কিন্ত অবশেষে একদিন সাহস সঞ্চার করে একটি পাবলিক স্পিকিং কোর্সে ভর্তি হলেন। তারপর নিজের দক্ষতা বাড়ানোর জন্যে এই কোর্সের উপরই ক্লাস নিতে শুরু করলেন।

 

image source- fortuneimage source- fortune

 

এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, তাঁর বেশির ভাগ ব্যবসায়িক সাফল্যগুলো তাঁর উপস্থাপনা কৌশল এর উপর নির্ভর করে। বাফেট বিশ্বাস করেন, আপনি অন্য যা-ই কিছু করেন না কেনো সাধারণ মানুষের সাথে আপনার একটি ভালো যোগাযোগ দক্ষতা গড়ে তুলতে হবে। তা না হলে মানুষ আপনাকে অনুসরণ করবে না।

 

কলম্বিয়া এবং নেব্রাস্কা বিশ্ববিদ্যালয় হতে নেওয়া ডিপ্লোমার চেয়ে কার্নেগী ইন্সটিটিউশনে পাবলিক স্পিকিং এর উপর নেওয়া একটি কোর্সের তিনি এতই মূল্যায়ন করেন যে ইন্সটিটিউশন কর্তৃক দেওয়া একটি সার্টিফিকেট তিনি তাঁর অফিসের দেওয়ালে টাঙ্গিয়ে রেখেছেন। 

“গ্র্যাজুয়েট স্কুলে আপনি জটিল সব বিষয় নিয়ে শিখতে পারেন, কিন্ত সবচেয়ে বেশি যেটা প্রয়োজনীয় তা হলো অন্যকে আপনার ধারনাগুলো অনুসরন করাতে সমর্থ করা।’’

                                        -ওয়ারেন বাফেট

 

২। সঠিক মানুষকে অনুসরণ করুণঃ

কোনো কিছু সহজে শিখতে চাইলে অথবা কিছু হতে চাইলে যা করতে হবে তা হলো নিজেকে এমন কিছু মানুষদের মাঝে পরিবেষ্টিত করে রাখা যা বাফেটের ভাষায় ‘হাই গ্রেড পিপল’ অথবা তাদেরই মাঝে থাকতে হবে যারা আপনার চেয়েও অধিক যোগ্য। আপনি আপনার নিজের অজান্তেই সেই মানুষগুলোর ভালো গুণগুলো আপনার নিজের মাঝে ধারন করবেন এবং পরবর্তীতে দেখা যাবে আপনিও ঠিক তাদেরই মত আচরণ করছেন। এটি শুধুমাত্র তখনই মঙ্গলজনক হবে যখন আপনি সঠিক মানুষগুলোকেই বাছাই করে নিবেন।

 

বাফেটের স্মার্ট শর্টকাটগুলির একটি হলো টিউটরিংয়ের জন্য অর্থ প্রদান করা। হ্যাঁ, স্ব-শিক্ষা সস্তা। স্ব-শিক্ষা ব্যাপারটি সাধারণত সব মানুষের সাথে কাজ করে না। আপনার হয়ত কোনোকিছু চিন্তা করে খুঁজে বের করতে এক বছরও লেগে যেতে পারে কিন্ত একজন অভিজ্ঞ ব্যক্তি এক মাস কিংবা এক সপ্তাহের মধ্যেই আপনাকে তা শিখিয়ে দিতে পারে। পাশাপাশি, একজন গৃহশিক্ষক আপনাকে কাজের প্রতি দায়িত্বশীল করে তুলবে, সব পাঠে অংশগ্রহন করতে বাধ্য করবে এবং বাড়ির কাজগুলো সময়মত করতে বাধ্য করবে যা কোনো দক্ষতা আয়ত্ত করার জন্য খুব প্রয়োজন।

বাফেটের মতে, তিনি বহু বছর ধরে পাবলিক স্পিকিং শেখার চেষ্টা করেন এবং ব্যর্থ হন। কিন্ত তিনি এই দক্ষতাটি আয়ত্ত করতে পেরেছিলেন তখনই, যখন তিনি পাবলিক স্পিকিং কোর্সের জন্য অর্থ পরিশোধ করেন। অর্থ পরিশোধ করার ফলে তিনি এই কোর্সটি নিয়ে দায়িত্বশীল হয়ে পড়েন এবং একজন সফল ব্যবসায়ী হবার পূর্বশর্ত এই  প্রয়োজনীয় দক্ষতাটি আয়ত্ত করতে সক্ষম হন।

 

image source- the metaindeximage source- the metaindex

 

৩। নিজের দক্ষতাকে কাজে লাগানঃ

বাফেট স্বীকার করেন যে, তিনি শুধুমাত্র ব্যবসায়িক কাজকর্মই ভালো বুঝতে পারেন। আবার এক্ষেত্রে সব ব্যবসায়িক কাজকর্মই যে ভালো বুঝেন তা না, শুধুমাত্র সেগুলোই বুঝেন যেটাতে তিনি পারদর্শী। শুরু থেকেই বাফেট লক্ষ্য করলেন যে ব্যবসার ক্ষেত্রে মানসিক স্থিতিশীলতার পাশাপাশি কোথায় বিনিয়োগ করলে তা লাভজনক হবে তা বিশ্লেষণ করার সক্ষমতা থাকা উচিত। বাফেট এই দুটি দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে নিজেই নিজের ভাগ্য গড়ে তুললেন। এবং বাফেট অন্যকেও ঠিক এই কাজগুলো করার জন্যে উৎসাহিত করেন। সব বিষয়ে পারদর্শী হবার চেষ্টা করার চেয়ে সুনির্দিষ্ট যেকোনো একটি বিষয়ে পারদর্শীতা অর্জন করাই ভাল।

 

৪। সমস্যাকে সহজভাবে দেখুনঃ

দৈনন্দিন কাজ করতে গিয়ে অনেক ভুল হতে পারে। কিন্ত বাফেটের মতে কাজের ক্ষেত্রে আপনি তখনই ভাল করতে পারবেন যখন যে কোন সমস্যার মাঝ থেকে আপনি সুযোগ খুঁজে নিবেন। বাফেট একবার হার্ভার্ড কর্তৃক অমনোনীত ঘোষিত হয়েছিলেন। সেই সময়টি তাঁর এবং তাঁর বাবার জন্যে ভীষণ হতাশাজনক ছিলো।

 

হার্ভার্ড এর অমনোনয়নের বিষয়টি নিয়ে বাফেট খুবই হতাশ ছিলেন। কিন্ত যুবক বাফেট নিজেই নিজেকে সামলে নিয়ে নতুন করে আবার অন্য স্কুলগুলো সম্পর্কে তথ্য নিতে শুরু করেন। একটা সময় এই তথ্য সংগ্রহ করার কাজের মাঝেই তাঁর বেঞ্জামিন গ্রাহাম এর সাথে পরিচয় ঘটে পরবর্তিতে যিনি হয়ে উঠেন বাফেটের সবচে’ পছন্দের একজন ব্যক্তিত্ব। গ্রাহাম তখন কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করতেন। বাফেট সেখানে আবেদন করেন এবং তাঁর আবেদন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক গৃহিত হয়। আর এভাবেই বাফেটের সাথে গ্রাহামের পরিচয় ঘটে যিনি পরবর্তি সময়ে বাফেটের জীবনে প্রচুর প্রভাব সৃষ্টি করেন। এমনকি বিনিয়োগ সম্পর্কিত যাবতীয় বিষয়াবলী বাফেট গ্রাহামের কাছ থেকেই শিখে নিয়েছিলেন।

“আমি সবসময়ই জানতাম যে আমি ধনী হতে যাচ্ছি, আর এ বিষয়ে আমার কোনো সন্দেহ ছিলো না।

-ওয়ারেন বাফেট

 

৫। নিজের শারীরিক ও মানসিক সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করুনঃ

কেউ যদি কখনো আপনাকে একটি শর্তের বিনিময়ে বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল গাড়িটি অফার করে তাহলে গাড়িটি নিয়ে আপনি কি করতে চান? আমার অনুমান আপনি গাড়িটিকে নিজের বাচ্চার মত করে যত্ন করবেন। ঠিক এইভাবেই বাফেট চেয়েছেন আপনিও যেনো গাড়িটির মত করে নিজের শরীর এবং মনের যত্ন নেন। আপনি যদি এই সময়টাতে মন এবং শরীরের পুরোপুরি যত্ন না নেন তাহলে যখন আপনার বয়স চল্লিশ কিংবা পঞ্চাশের কাছাকাছি পৌঁছাবে তখন আপনার অবস্থা হবে ঠিক একটি নষ্ট গাড়ির মত যেটি শুধু গ্যারেজেই পড়ে থাকে।

 

Source: www.entrepreneur.com